জেসিআই ঢাকা ইন্ডিপেন্ডেন্টের উদ্যোগে ম্যাজিক ওয়ার্কশপ

বিকল্প পেশার উৎস হিসেবে, ‘Magic course for Underprivileged Youth’ প্রকল্পের তৃতীয় এবং শেষ সেশন গতকাল ১০ সেপ্টেম্বর বিকেল ৪টায় অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকার আদাবরে, ‘শিশুদের জন্য আমরা’ নামের একটি সংস্থায় জেসিআই ঢাকা ইন্ডিপেন্ডেন্ট এই অনুষ্ঠানটি আয়োজন করে।

জেসিআই ঢাকা ইন্ডিপেন্ডেন্টের ইয়ুথ স্কিল ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্টের অংশ হিসেবেই এবং জনাব মুকুল আলমের পরিচালনায়, ১৫ থেকে ১৮ বছর বয়সীদের জন্য এই ম্যাজিক ওয়ার্কশপ আয়োজন করা হয়। নবীন উদ্যোক্তাদের উৎসাহিত করতে RISE -এর অধীনে অনুষ্ঠিত হয় ওয়ার্কশপটি। ওয়ার্কশপের পরিকল্পনা ও প্রশিক্ষণের দায়িত্ব পালন করেছেন খ্যাতিমান জাদুকর সাবা হক অনিক। গত ২৭ আগস্ট ঢাকার আদাবরে প্রথম সেশন অনুষ্ঠিত হওয়ার মাধ্যমে কোর্সটির সূচনা হয়। ১০ সেপ্টেম্বর, আদাবরে অনুষ্ঠিত সেশনটি ছিল কোর্সের তৃতীয় সেশন এবং একটি পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই কোর্সটি সমাপ্ত হয়। অনুষ্ঠানে লোকাল চ্যাপ্টার প্রেসিডেন্ট মিস তাসনুভা আহমেদ অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে সার্টিফিকেট প্রদান করেন।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ম্যাজিশিয়ান এবং প্রশিক্ষক সাবা হক অনিক, প্রকল্প পরিচালক মুকুল আলম, লোকাল ভাইস প্রেসিডেন্ট শাফকাত হুসেইন, লোকাল ট্রেসারার আশফাক রহমান, হারুন উর রশিদ, আবদুল্লাহ মাসুদ বেগ এবং মারুফ রহমান।

শ্রেষ্ঠ পাঁচজন অংশগ্রহনকারীকে পুরষ্কার হিসেবে ম্যাজিক কিট প্রদান করা হয়, যা তারা প্রবর্তিতে ম্যাজিশিয়ান হিসেবে তাদের পেশায় ব্যবহার করতে পারবে। আমাদের সদস্য আবদুল্লাহ মাসুদ বেগ আমাদের পাঁচ বিজয়ীর জন্য প্রাইজমানি প্রদান করেন।

জুনিয়র চেম্বার ইন্টারন্যাশনাল, যা জেসিআই হিসেবে অধিক পরিচিত, ১৮ থেকে ৪০ বছর বয়সী তরুণ পেশাজীবীদের একটি অলাভজনক এবং আন্তর্জাতিক বেসরকারী সংস্থা। জেসিআই এর সদস্যরা তাদের নিজ নিজ কমিউনিটিতে ইতিবাচক এবং টেকসই উন্নয়নের জন্য কাজ করতে প্রতিজ্ঞ্যাবদ্ধ। এটির সদর দপ্তর আমেরিকাতে অবস্থিত এবং ১২৪টি দেশে জেসিআই কাজ করে যাচ্ছে। এই সংস্থা ইউরোপিয়ান কাউন্সিল এবং ইউনেস্কোর পরামর্শক হিসেবে কাজ করে থাকে। জেসিআই ঢাকা ইন্ডিপেন্ডেন্ট, জেসিআই বাংলাদেশের একটি নতুন চ্যাপ্টার যা বাংলাদেশের স্বাধীনতার মাস মার্চে তাদের কাজ শুরু করে।

আরো