বৃটেনও নিষিদ্ধ করতে যাচ্ছে হামাসকে

ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাসকে নিষিদ্ধ করতে যাচ্ছে বৃটেন। যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ পশ্চিমা দেশগুলোতে আগেই হামাসকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

বৃটেন শুধু হামাসের আল-কাসেম ব্রিগেডকে সন্ত্রাসবাদে জড়িত অভিযোগে নিষিদ্ধ করেছিল। তবে এবার হামাসের সকল শাখা ও এর প্রতি যে কোনো ধরণের সমর্থনকে নিষিদ্ধ করতে যাচ্ছে বৃটেন। গোষ্ঠীটিকে বৃটেনের সন্ত্রাসবাদ আইনের অধীনে আনা হয়েছে।

গার্ডিয়ানের খবরে জানানো হয়, হামাসকে সন্ত্রাসী সংগঠন ঘোষণা করায় এর প্রতি সমর্থন, পতাকা উড়ানো এমনকি সংগঠনের জন্য কোনও সভা আয়োজন করা বৃটিশ আইন অনুযায়ী নিষিদ্ধ ঘোষিত করা হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটনে এ বিষয়ে ঘোষণা দেয়ার কথা রয়েছে বৃটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রীতি প্যাটেলের। আগামী সপ্তাহে পার্লামেন্টে আনুষ্ঠানিকভাবে এটি উত্থাপন করা হবে। হামাস গঠিত হওয়ার পর থেকেই একে সন্ত্রাসী সংগঠন বলে আসছে ইসরাইল।

বৃটেনের এমন সিদ্ধান্তের পর একে স্বাগত জানিয়েছে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেট। যদিও ইসলামিক রাষ্ট্রগুলোতে হামাসকে ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাপন্থী প্রতিরোধ যোদ্ধাদের সংগঠন বলে মনে করা হয়। তবে ইসরাইলি নাগরিকদের টার্গেট করে অনবরত হামলার কারণে পশ্চিমা ব্লক সংগঠনটিকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসাবে তালিকাভুক্ত করেছে।