বিশ্বজুড়ে একদিনে সর্বোচ্চ ২৮ লাখ সংক্রমণের রেকর্ড

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পরিস্থিতি সারা বিশ্বে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। প্রতিদিন লাখো মানুষের দেহে ভাইরাসটি শনাক্ত হচ্ছে। চার দিন আগে সর্বোচ্চ ২৭ লাখ মানুষের করোনা শনাক্তের রেকর্ড হলেও গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমিতের সংখ্যা সেই রেকর্ডকে ছাড়িয়ে গেছে। গত একদিনে প্রায় ২৮ লাখ মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া ভাইরাসটিতে। নতুন সংক্রমিতদের নিয়ে এই সংখ্যাটা ৩১ কোটি ৪০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বুধবার সকাল পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৭ হাজার ৮৪৭ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে ৩ হাজারের বেশি। এতে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৫৫ লাখ ২০ হাজার ৭৫১ জনে।

একই সময়ের মধ্যে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৭ লাখ ৭২ হাজার ৬৮ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে ৮ লাখেরও বেশি। এতে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩১ কোটি ৩৯ লাখ ৪৪ হাজার ৮৮৪ জনে।

গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। এই সময়ের মধ্যে দেশটিতে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৬ লাখ ৭২ হাজার ৬৮ জন এবং মারা গেছেন ২ হাজার ১৭৩ জন। করোনাভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৬ কোটি ৩৩ লাখ ৯০ হাজার ৮৭৬ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ৮ লাখ ৬৩ হাজার ৮৯৬ জন মারা গেছেন।

দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে রাশিয়া। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৭৮৩ জন এবং নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ১৭ হাজার ৫২৫ জন। এছাড়া মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১ কোটি ৬ লাখ ৮৪ হাজার ২০৪ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ১৭ হাজার ৬৮৭ জনের।

যুক্তরাজ্যে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ২০ হাজার ৮২১ জন এবং মারা গেছেন ৩৭৯ জন। মহামারির শুরু থেকে এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১ কোটি ৪৭ লাখ ৩২ হাজার ৫৯৪ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১ লাখ ৫০ হাজার ৬০৯ জন মারা গেছেন। একই সময়ে ইতালিতে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ২০ হাজার ৫৩২ জন এবং মারা গেছেন ২৯৪ জন।

ফ্রান্সে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৬৮ হাজার ১৪৯ জন এবং মারা গেছেন ৩৪১ জন। মহামারির শুরু থেকে এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১ কোটি ২৫ লাখ ৭৩ হাজার ২৬৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১ লাখ ২৬ হাজার ৫৯ জন মারা গেছেন।

একই সময়ে স্পেনে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৩৪ হাজার ৯৪২ জন এবং মারা গেছেন ২৪৭ জন। জার্মানিতে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৬১ হাজার ২০৫ জন এবং মারা গেছেন ৩৮৭ জন। ইউক্রেনে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৫ হাজার ৪২৯ জন এবং মারা গেছেন ২১৯ জন।

করোনায় আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যায় তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ব্রাজিলে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১৩৯ জন এবং নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৭১ হাজার ৪৪৭ জন। অপরদিকে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ২ কোটি ২৬ লাখ ৩০ হাজার ১৪২ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৬ লাখ ২০ হাজার ২৮১ জনের।এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় পোল্যান্ডে ৪৯৩ জন, ভিয়েতনামে ২৫৬ জন, ফিলিপাইনে ২১৯ জন, তুরস্কে ১৩৭ জন, দক্ষিণ আফ্রিকায় ১১৯ জন মারা গেছেন।