বিদেশে লবিস্ট নিয়োগের অভিযোগ বানোয়াট বলল বিএনপি

বিদেশে লবিস্ট নিয়োগ করে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে বিএনপি-সরকারের এমন অভিযোগ ‘ভিত্তিহীন’ ও ‘বানোয়াট’ বলে দাবি করেছে দলটি।

সরকারের দিকে পাল্টা অভিযোগ তুলে দলটি বলছে, নিজেদের অপকর্ম ধামাচাপা দিতে আওয়ামী লীগ সরকার গত ১৪ বছর ধরে লবিস্ট নিয়োগ করেছে।

বিএনপির জ্যৈষ্ঠ নেতা খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘এটা ভিত্তিহীন ও বানোয়াট অভিযোগ। যখন একটি সংস্থা ও এর শীর্ষ কর্মকর্তাদের ওপর আমেরিকা নিষেধাজ্ঞা দিলো, যখন বাংলাদেশকে গণতান্ত্রিক সম্মেলনে দাওয়াত দেয়া হলো না, তখন এই ইস্যু তোলা হলো। আমরা জানতে চাই, এই বিষয় কেন আগে সামনে এলো না।’

বুধবার রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবর প্রাঙ্গণে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন তিনি।

এর আগে জিয়াউর রহমানের ৮৬তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন ও দলটির অন্যান্য নেতা-কর্মী তার (জিয়া) কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘সংবাদপত্রে এর আগে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে আওয়ামী লীগ সরকার গত ১৪ বছর ধরে বাংলাদেশের গণতন্ত্র ধ্বংস, মানবাধিকার লঙ্ঘন ও জনসাধারণের অর্থ লুণ্ঠনের মতো অপকর্ম ঢাকতে বিদেশে লবিস্ট নিয়োগ করছে।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘যখন পত্রিকায় এই ধরনের খবর এসেছে তখন সরকার কিছু মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্য দিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করতে চাইছে।’

তিনি জানান, সরকারের এ অভিযোগের বিষয়ে শিগগিরই সংবাদ সম্মেলন করে তাদের দলের আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানানো হবে।

এর আগে মঙ্গলবার পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম অভিযোগ করে বলেন, ‘বিএনপি বাংলাদেশের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাতে লবিস্টদের জন্য কমপক্ষে তিন দশমিক ৭৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার খরচ করেছে এবং তিনি গণমাধ্যমের সঙ্গে প্রাসঙ্গিক নথি শেয়ার করেন যা পাবলিক ডোমেনেও রয়েছে।’

তিনি দাবি করেন, আওয়ামী লীগ সরকার তার তিন মেয়াদে কখনই কোনো লবিস্ট নিয়োগ করেনি। তবে ২০১৫ সালে বাংলাদেশ সম্পর্কে বিশ্বকে তথ্যের ভিত্তিতে জানাতে এবং দেশ ও জনগণের বিরুদ্ধে অপপ্রচার রুখতে মিডিয়া ফ্রন্টে একটি কোম্পানি নিযুক্ত করা হয়েছিল।