রাবি ছাত্রীর সুইসাইড নোটে কি লেখা ছিল

সুইসাইড নোট লিখে এবার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) এক ছাত্রী আত্মহত্যা করেছেন। গলায় ফাঁস দিয়ে নিজ বাড়িতে আত্মহত্যা করেন ওই ছাত্রী। নিহত সাদিয়া তাবাসসুম রাবির ভূতত্ত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী। তার গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার মাওহা ইউনিয়নের বিষমপুর গ্রামে। তিনি অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য মাহবুব রশিদ ফারুকের মেয়ে।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, দুপুরে নিজ ঘরে বাঁশের আড়ার সঙ্গে গলায় ফাঁস দেন সাদিয়া। পরিবারের লোকজন বিষয়টি টের পেয়ে তাকে উদ্ধার করে গৌরীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তবে মৃত্যুর আগে সাদিয়া তার বাবার ডায়েরিতে লিখে গেছেন ‘চোরাবালির মতো ডিপ্রেশন বেড়েই যাচ্ছে, মুক্তির পথ নেই, গ্রাস করে নিচ্ছে জীবন, মেনে নিতে পারছি না।’

গৌরীপুর থানার উপ-পরিদর্শক মাইনুল রেজা জানান, মাঝে বেশ কিছু দিন সাদিয়ার লেখাপড়া বন্ধ ছিল। যে কারণে তিনি মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, এসব কারণে সাদিয়া আত্মহত্যা করতে পারেন।

সুরতহাল প্রতিবেদন শেষে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

রাবির ভূতত্ত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. সোহেল কবির বলেন, ঘটনাটি সম্পর্কে জেনেছি

এটা খুব হতাশাজনক আমাদের একজন শিক্ষার্থী এভাবে মারা যাবে, আমরা ভাবতেও পারিনি। তবে কী কারণে আত্মহত্যা করেছে তা বলতে পারছি না।