বাংলাদেশ থেকে হজ পালনের সুযোগ পেলো আরো ২৪১৫ জন

চলতি বছরের হজ মৌসুমে বাংলাদেশের জন্য ২ হাজার ৪১৫টি হজ কোটা বাড়িয়েছে সৌদি আরব। ফলে এ বছর বাংলাদেশ থেকে আরও ২ হাজার ৪১৫ জন পবিত্র হজ পালনের সুযোগ পাবেন।

হজ এজেন্সি অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (হাব) সভাপতি এম শাহাদাত হোসেন বৃহস্পতিবার এ তথ্য জানান।

করোনা মহামারির কারণে গত দুই বছর বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশ থেকেও কেউ হজে যেতে পারেননি। করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় চলতি বছর বিভিন্ন দেশ থেকে ১০ লাখ মুসল্লিকে হজ পালনের অনুমতি দেয় সৌদি কর্তৃপক্ষ।

আগের কোটা অনুযায়ী, চলতি বছর বাংলাদেশ থেকে ৫৭ হাজার ৫৮৫ জন মুসল্লি পবিত্র হজ পালনের সুযোগ পাচ্ছেন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৪ হাজার ৫৬৪ জন ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৫৩ হাজার ৫৮৫ জন মুসল্লি পবিত্র হজে যেতে পারবেন।

এখন কোটা বাড়ানোয় বাংলাদেশ থেকে আরও ২ হাজার ৪১৫ জন পবিত্র হজ করার সুযোগ পাবেন।

ধর্ম মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ২১ জুন পর্যন্ত সৌদি আরবে পৌঁছেছেন ২৮ হাজার ৩০৯ জন বাংলাদেশি হজযাত্রী। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় গেছেন ৩ হাজার ৩৮৫ জন। বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় গেছেন ২৪ হাজার ৯২৪ জন।

সৌদি আরবে গিয়ে এখন পর্যন্ত ছয় বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যুর তথ্য পাওয়া গেছে।
এবার সরকারি ব্যবস্থাপনায় দুটি হজ প্যাকেজ রয়েছে। প্রথম প্যাকেজে খরচ ৫ লাখ ২৭ হাজার ৩৪০ টাকা। দ্বিতীয় প্যাকেজে খরচ ৪ লাখ ৬২ হাজার ১৫০ টাকা।

বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ প্যাকেজের খরচ কোরবানি ছাড়া ৪ লাখ ৬৩ হাজার ৭৪৪ টাকা।

‘রোড টু মক্কা’ উদ্যোগের মাধ্যমে এবারের হজ ব্যবস্থাপনাকে আরও সহজ ও প্রযুক্তিনির্ভর করা হয়েছে।

হজযাত্রীদের জন্য ডেডিকেটেড বিমানসুবিধা দেওয়া হচ্ছে। হজযাত্রীদের ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা ঢাকা থেকেই শেষ করা হচ্ছে।