এই ট্রফি ১৮ কোটি মানুষের: সাবিনা

এই ট্রফি ১৮ কোটি মানুষের: সাবিনা

সাফ শিরোপা জয়ের পর থেকেই ছিল অপেক্ষা, কখন দেশে আসবে বাংলাদেশ নারী ফুটবল দল। অবশেষে সেই মাহেন্দ্রক্ষণ চলে এসেছে। সাবিনা খাতুনরা ট্রফি নিয়ে পা রেখেছেন ঢাকায়। দেশে পা রেখেই বাংলাদেশ অধিনায়ক জানালেন, এই শিরোপা বাংলাদেশের, দেশের ১৮ কোটি মানুষের।

প্রথমবারের মতো জেতা সাফ শিরোপা বাংলাদেশের সব মানুষকে উৎসর্গ করে অধিনায়ক সাবিনা বলেছেন, ‘এই ট্রফি বাংলাদেশের ১৮ কোটি মানুষের। সকলকে ধন্যবাদ আমাদেরকে এতো সুন্দরভাবে বরণ করে নেওয়ার জন্য। আমরা কৃতজ্ঞ। যদি চার-পাঁচ বছরের পরিশ্রম দেখেন তাহলে দেখবেন সেটার ফল এখন হাতে আছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আমাদের এভাবে বরণ করে নেওয়ার জন্য। এই ট্রফি আমাদের দেশের জনগণের জন্য। শেষ চার বছরে আমাদের যে সাফল্য আছে, সবকিছু এর মধ্যে।’

বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন ও বাফুফের নারী উইংয়ের চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরণকেও ধন্যবাদ জানাতে ভোলেননি সাবিনা। তার ভাষ্য, ‘প্রথমেই আমি কৃতজ্ঞতা জানাই, আমাদের মেয়েদের জন্য আজকের এই রাজকীয় আয়োজন করায়। মাননীয় ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী, বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিনকে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। আমাদের এই পথচলা আসলে অনেক দিনের। ২০১২ সালে এই পরিবর্তন শুরু করেছিলেন আমাদের চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরণ, পরে তা রূপ দেন কাজী সালাউদ্দিন। সেটার প্রেক্ষিতেই আজ আমাদের এই অর্জন।’

ট্রফি নিয়ে বুধবার দুপুর ১টা ৪০ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছায় সাবিনা খাতুনদের বহনকারী বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইটটি।

গত সোমবার কাঠমান্ডু দশরথ রঙ্গশালা স্টেডিয়ামে সাফ ফাইনালে নেপালকে ৩-১ গোলে হারিয়ে প্রথমবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ নারী ফুটবল দল। ট্রফি নিয়ে বুধবার দুপুরে দেশে ফিরেছেন চ্যাম্পিয়ন কন্যারা। গোটা দেশ বরণ করে নিচ্ছে তাদের!

৫০ লাখ টাকা পুরস্কার ঘোষণা বিসিবির

প্রথমবারের মতো সাফ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলার মেয়েরা। পুরো দেশকে উৎসবের উপলক্ষ এনে দিয়ে প্রশংসায় ভাসছে সাবিনারা। অবশ্য তাদের জন্য নানা পুরস্কারেরও ঘোষণা আসছে। মেয়েদের অসাধারণ এই কীর্তির জন্য এবার অর্থ পুরস্কার ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। তারা নারী জাতীয় ফুটবল দলকে ৫০ লাখ টাকা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

সোমবার সাফ ফাইনালে বাংলাদেশ স্বাগতিক নেপালকে হারিয়েছে ৩-১ গোলে। এই জয়ে পুরস্কারের ঘোষণা দিয়ে বুধবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, ‘অসাধারণ নৈপুণ্য ও ঐতিহাসিক অর্জনে নারী ফুটবল দল পুরো জাতিকে গর্বিত করেছে। তাদের এই কীর্তির মর্যাদা দিতে ও সমর্থনে আমি পুরো দলকে বিসিবির পক্ষ থেকে ৫০ লাখ টাকা পুরস্কার ঘোষণা করছি।’

তিনি আরও যোগ করে বলেছেন, ‘আমার কোনও সন্দেহ নেই যে এই সাফ জয় সমগ্র দেশের ক্রীড়া সংশ্লিষ্ট নারী-পুরুষের পাশাপাশি বিভিন্ন ক্রীড়া দলকে নিজ নিজ ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক গৌরব অর্জনে ব্যাপকভাবে অনুপ্রাণিত করবে।’

পথে পথে শুভেচ্ছা বৃষ্টিতে সাবিনার চ্যাম্পিয়ন দল

রাস্তার দুই ধারে মানুষ। কেউ ছুটছেন, কেউ দাঁড়িয়ে হাত নাড়ছেন। যারা গাড়িতে আছেন তারাও সাবিনাদের ছাদখোলা ‘চ্যাম্পিয়ন’ বাসের দিকে তাকিয়ে আছেন। চ্যাম্পিয়ন বাসে ট্রফি নিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন সাবিনা। তার সতীর্থরা শুভেচ্ছার জবাব দিচ্ছেন দেশের পতাকা নাড়িয়ে।

বিমানবন্দর থেকে সাবিনাদের গাড়ি বের হওয়ার পর থেকে পুরো পথজুড়ে এই চিত্র দেখা গেছে। বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনের অভাবনীয় এই দৃশ্য উপভোগে প্রতিটি সড়কেই মানুষের জটলা। অনেকে ভিডিও ধারণ করছেন। অনেকে সেলফি তুলছেন। ফুট ওভারব্রিজগুলোতে দাঁড়িয়ে অভিবাদন দিচ্ছেন পথচলতি মানুষ।

সাবিনাদের চ্যাম্পিয়ন বাস খানিকটা ধীর গতিতে যাচ্ছে। পেছনে ও আশপাশে মিডিয়া ও ক্রীড়া সংশ্লিষ্টদের অনেক গাড়িও পথ চলছে একইসঙ্গে।

সাবিনাদের ‘চ্যাম্পিয়ন’ বাসে উঠেছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এমপিও। তার সঙ্গে উঠেছেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব মেজবাহ উদ্দিন, বাফুফে সহ-সভাপতি আতাউর রহমান মানিক, দলের ম্যানেজারসহ সংশ্লিষ্ট অনেকে।

বিমানবন্দরে সকাল থেকেই উৎসুক জনতার ভিড়। সাবিনারা ভিভিআইপি গেট দিয়ে প্রবেশের পরপরই মিডিয়া হুমড়ি খেয়ে পড়ে। এতে প্রেস কনফারেন্স নির্ধারিত জায়গায় হয়নি। প্রায় এক ঘন্টা পর ভিভিআইপি গেটের সামনে অধিনায়ক সাবিনা মিনিট দুয়েকের জন্য কথা বলেছেন। তিনি বলেছেন, এ ট্রফি দেশবাসীর জন্য, ১৮ কোটি মানুষের জন্য।

বিমানবন্দরে ক্রীড়া মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশন, অ্যাথলেটিক্স ফেডারেশনসহ অনেক সংস্থা ও ব্যক্তি সাবিনাদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

গত সোমবার নেপালকে তাদের মাটিতে ৩-১ গোলে হারিয়ে প্রথমবারের মতো সাফ ফুটবলে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ। আজ তারা দেশে ফিরেছেন।